হারিয়ে যাওয়া মুক্তো বই রিভিউ

বইয়ের নাম : হারিয়ে যাওয়া মুক্তো
লেখক: শিহাব আহমেদ তুহিন
বইয়ের ধরণ : অনুপ্রেরণামূলক
প্রকাশনী : সমর্পণ
প্রথম প্রকাশ : মে,২০১৮
মূদ্রিত মূল্য: ২০০টাকা
পৃষ্ঠা সংখ্যা : ১৫৮
ব্যক্তিগত রেটিং : ১০/১০

একসময়ে মুসলিমরা ছিল সবার উপরে। ভালোভাবে লক্ষ করলে দেখা যাবে, যে সময়ে আমরা আল্লাহর কিতাব ও রাসূল (স) এর সুন্নাহগুলোকে আঁকড়ে ধরেছিলাম, সেসময়ে মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের সম্মানিত করেছেন। আর যখন আমরা ইসলাম ছাড়া অন্যকিছুতে সম্মান খুঁজেছি, রাসূল (স) এর সুন্নাহর চেয়ে অন্যকিছুকে শ্রেষ্ঠ ভেবেছি, কেবল তখনই আমরা পদে পদে লাঞ্ছিত হয়েছি।

‘হারিয়ে যাওয়া মুক্তো’ বইটার শুরুতেই আমরা দেখতে পেয়েছি লেখক নিয়ত ও দোয়ার অত্যাবশ্যকীয় ভূমিকা তুলে ধরেছেন যা আমাদের পার্থিব জীবনে ও আখিরাতের জীবনে খুবই কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। নিয়ত-ই নির্ধারণ করে আমাদের গন্তব্যস্থল,আর দোয়া-ই পৌঁছে দেয় কাংখিত গন্তব্যে। আমাদের এই আধুনিক জীবনে কখনো কখনো এমন সময় আসে যে, আমাদের কাছে সবকিছুই থাকে যেগুলো থাকলে একজন মানুষকে সুখী বলে দাবি করে তথাকথিত আধুনিক সমাজ। তবুও আমাদের মন ভালো থাকে না। হৃদয়ে থাকে না সুখের চিহ্ন, যেন এক অঙ্গাত শূন্যতা বিরাজ করে সমগ্র হৃদয় জুড়ে যার ফলে অনেকেই বেছে নেয় আত্মহত্যার সরলপথ। কিন্তু এ শূন্যতা আমার রবের শূন্যতা, যা কেবল আল্লাহর কাছে আশ্রয় নিলেই দূর করা সম্ভব।

আমরা মুসলিম হয়েও যুগের সাথে তাল মেলাতে গিয়ে হারিয়ে ফেলেছি প্রিয় নবী ও রাসূল হজরত মুহাম্মদ (স) এর সুন্নাহসমুহকে। এখন বৃষ্টি হলেই আমরা খিচুড়ি, বেগুন ভাজা, কত কি আয়োজন করি!! কখনো কখনো বৃষ্টি দেখলে দৌড়ে পালিয়ে যায় যেন সুন্দর জামাটা ভিজে না যায়। ভুলে যায় যে,বৃষ্টি আমাদের জন্য আল্লাহর রহমত।অথচ আমাদের প্রিয়নবী ও রাসূল হজরত মুহাম্মদ (স) বৃষ্টি হলেই খুব সাবধাণতার সাথে তার পবিত্র দেহের কিছু অংশ উন্মুক্ত করে বৃষ্টির পরশ বোলাতেন।

একজন প্রকৌশলী কোনো বিল্ডিংয়ের ডিজাইন দেখে, রাজমিস্ত্রী দেখে বিল্ডিংয়ের গাথুনি,রংমিস্ত্রি দেখে বিল্ডিংয়ের রঙের প্রলেপ,কুমোর দেখে বিল্ডিংয়ের কারুকার্য।অথচ একজন তাকওয়াবান মুসলিম দুনিয়ার সবকিছুতেই তার রবের নিদর্শন খুঁজে পায়। তার কাছে প্রকৌশলী, রাজমিস্ত্রী, রংমিস্ত্রী,কুমোর কারও কোনো স্থান থাকে না। সে শুধু একটা কথায় মানে যে এসকল সৃষ্টিই আমার রবের সৃষ্টি।

কখনো কখনো আমরা নিজের অজান্তে অথবা পার্থিব সুখের আশায় অনেক গোনাহ করে ফেলি। এই বইটিতে লেখক খুব সুন্দর করে কয়েকটি হাদিস তুলে ধরেছেন যেগুলোতে খুব নিখুঁতভাবেই তুলে ধরা হয়েছে কিভাবে আর কখন মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের সগীরা গোনাহগুলো মাফ করে দিবেন। মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের কবীরা গোনাহগুলোকে মাফ করবেন শুধুমাত্র আমাদের পরিপূর্ণ তওবার মাধ্যমে। ব্যক্তিজীবনে তওবা ঠিক কতটা কার্যকর আর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে সেটাও তুলে ধরা হয়েছে।

অবহেলায় মুক্তোগুলো হারিয়ে যায়। আমরা তখন মুক্তো ফেলে জঞ্জালকে আঁকড়ে ধরি।কিন্তু মুক্তো আর জঞ্জাল কি কখনো এক হয়?? একমাত্র মুক্তোগুলোই পারে এই নোংরা পৃথিবীতে আমাদের পথ চলতে সাহায্য করতে। হতাশ জীবনের এক চিলতে আলো হতে।এই বইটি আমাদের ডাকছে আঁকড়ে ধরা জঞ্জালকে ফেলে মুক্তোগুলো খুঁজে বের করতে। পৃথিবীটাকে আবার মুক্তোর আলোই আলোকিত করতে।

ব্যক্তিগত মতামত অনুযায়ী : বইটি যখন পড়বেন কোথাও কোথাও হারিয়ে যাবেন,জীবনের প্রতিটি কাজ চোখের সামনে ভেসে উঠবে, ভালো কাজ করলে আনন্দিত হবেন আর খারাপ কাজ করলে অনুতপ্ত হবেন ফিরে আসবেন নিজের স্রষ্টার দরবারে। বইটা সত্যিই অসাধারণ যার বর্ণনা করার ক্ষমতা স্রষ্টা আজও আমায় দেয়নি। আমার কাছে বইটা যেন হাজারো বইয়ের মাঝে এক ‘হারিয়ে যাওয়া মুক্তো’।।

 

রিভিউয়ার: তামান্না ফেরদৌস মারিয়া

Please put your valuable comment here (Leave a Reply)

%d bloggers like this: